দেশকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে বিজেপি: মমতা

আন্তজার্তিক

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, আসামের নাগরিকপঞ্জি ইস্যু দেশকে ‘গৃহযুদ্ধ ও রক্তপাতের’ দিকে ঠেলে দিচ্ছে বিজেপি সরকার।

মঙ্গলবার দিল্লির কনস্টিটিউশন ক্লাবে খ্রিস্টান ধর্মযাজকদের কনফারেন্সে অংশগ্রহণ করে আসামের নাগরিকপঞ্জি ইস্যু নিয়ে আবার সরব হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কেন্দ্রীয় সরকারের তুলোধনা করে তিনি বলেন, ‘স্রেফ রাজনীতির স্বার্থে ৪০ লাখ মানুষকে শরণার্থী বানানো হচ্ছে। গোটা দেশে দমনপীড়া চালাচ্ছে একটি দল। আসামে কী হচ্ছে এসব? বছরের পর যারা এ দেশে রয়েছেন, তাদের তাড়িয়ে দেয়া হচ্ছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিজেপি বিভেদের রাজনীতি করছে। বাংলায় এসব বরদাশত করা হবে না। এই ঘটনার রেশ ধরে দেশে গৃহযুদ্ধ এবং রক্তপাত ঘটবে।’

বাছবিচারের রাজনীতির অভিযোগ তুলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিস্ফোরক অভিযোগ, ‘আমি অবাক হয়েছি, ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি ফখরুদ্দিন আলি আহমেদের নামও নাগরিকপঞ্জি থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। খ্রিস্টান হলে, মুসলিম হলেই নাম বাদ। ওরা ঠিক করবে কে আসামে থাকবে আর কে থাকবেন না। যারা ক্ষমতাসীন দলের সমর্থক, শুধু তারাই থাকবেন? আর অন্যরা থাকবেন না?’ স্পষ্ট জানিয়ে দেন, বিরোধীরা যেখানে ‘ক্ষমতায় আছে, সেখানে এসব করতে দেয়া হবে না।’

সম্প্রতি দু’মাসে তার তিনটি অনুষ্ঠান বাতিল নিয়েও বিজেপি-র দিকেই আঙুল তোলেন তৃণমূল নেত্রী।

তিনি বলেন, ‘যেখানেই যাচ্ছি অনুষ্ঠান বাতিল করাচ্ছে। আমার জন্য রাস্তা রয়েছে।’ ২০১৯-এ পরিবর্তনের ডাক দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০১৯-এ জনতা নেতা করবে। এখন কালেক্টিভ নেতৃত্ব রয়েছে।’

সূত্র: এনডিটিভি ও এই সময়

(ঢাকাটাইমস