ওয়াসার পানি মুখে তোলা যায় না’, ‘ওয়াসার পানি বিশুদ্ধই যদি হতো ফুটিয়ে খেতাম না’

মতামত

‘ওয়াসার পানি মুখে তোলা যায় না’, ‘ওয়াসার পানি বিশুদ্ধই যদি হতো ফুটিয়ে খেতাম না’

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন (বামে) এবং ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম। ছবি: সংগৃহীত

ওয়াসার পানি ‘শতভাগ সুপেয়’ ওয়াসা এমডির এই বক্তব্য এবং সেই পানি দিয়ে এমডিকে শরবত খাওয়ানোর অভিনব প্রতিবাদ। ঢাকা নগর তো বটেই, গণমাধ্যমের কল্যাণে যা হয়ে উঠেছে সারাদেশের আলোচনার বিষয়। বিষয়টি নিয়ে দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনের সঙ্গে কথা হয়েছে সাবেক মন্ত্রী ও বর্তমান সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন এবং ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলামের সঙ্গে।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন বলেন, “ওয়াসার পানি সম্পর্কে অভিযোগ তো আজকের না, বা নতুন না। এটি পুরনো। বিশেষ করে ওয়াসার যে সঞ্চালন পাইপগুলো রয়েছে সেগুলো এতো বেশি পুরনো যে সেই পাইপ দিয়ে যদি বিশুদ্ধ পানি আসে তা অশুদ্ধ হয়ে যায়।”

সাম্প্রতিক অভিজ্ঞতা নিয়ে তিনি বলেন, “আমি আজ (২৪ এপ্রিল) আমার নির্বাচনী এলাকার অধীন নয়াপল্টনে গিয়েছিলাম। সেখানে আমি একই অভিযোগ পেয়েছি যে ওয়াসার পানি মুখে তোলা যায় না। এ বিষয়ে বিভিন্ন সময় আমিও ওয়াসার এমডিকে বলেছি।”

ওয়াসার এমডির ‘শতভাগ সুপেয়’ মন্তব্য প্রসঙ্গে মেনন বলেন, “এমডি আত্মরক্ষার্থে সে কথা বলেছেন। তিনি সবসময়েই বলেন, ‘আমার কাছে পানি নিয়ে আসুক, আমি পরীক্ষা করে দেখবো।’ কিন্তু, একজন নাগরিক সেই ঝামেলায় যেতে চান না। অনেকেই হয়তো অভিযোগ করেন।”

“আমি মনে করি ওয়াসার এমডি যে ঢালাও মন্তব্য করেছেন তা ঠিক হয়নি। পানি বিশুদ্ধ করার জন্যে তার ব্যবস্থা নেওয়া উচিত,” যোগ করেন সাবেক বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী।

ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) তাকসিম এ খানের “ওয়াসার পানি শতভাগ সুপেয়”- এমন দাবির প্রেক্ষিতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনকে গতকাল (২৪ এপ্রিল) বলেন, “ওয়াসার পানি সরাসরি খাওয়ার কনফিডেন্স আমার নাই। আমি ওয়াসার পানি সরাসরি খাওয়ার কথা চিন্তাও করি না।”

তিনি আরও বলেন, “ওয়াসাকে আমাদেরকে অবশ্যই ক্লিন পানি দিতে হবে। আমরা চাই মানুষ যেনো ক্লিন ওয়াসার পানি খেতে পারে।… ওয়াসার পানিকে ক্লিন করতেই হবে। আমরা মনে করি, ওয়াসার পানিটাকে ক্লিন করেই জনগণকে দিতে হবে। এবং এটাকে খাওয়ার উপযোগী করতেই হবে।”

এ ব্যাপারে ওয়াসা কতোটুকু সফল হয়েছে বলে আপনি মনে করেন?- এর উত্তরে মেয়রের বক্তব্য, “ওয়াসাতো কাজ করছেই। আমরা ওয়াসা, ডিএনসিসি কিন্তু, জনস্বার্থে কাজ করি। জনগণের ভোগান্তি যেনো না হয় সে ব্যাপারে আমাদেরকে কাজ করে যেতেই হবে। জনগণকে ভালো পানযোগ্য পানি আমাদেরকে দিতে হবে।”

কিন্তু, জনগণতো বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে বলছে যে তাদের ভোগান্তি হচ্ছে। তারা বছরের পর বছর ওয়াসার পানি সরাসরি বা না ফুটিয়ে খেতে পারছেন না।– এ বিষয়ে মেয়র বলেন, “আমার নিজের ঘরে ওয়াসার পানি আমি ফুটিয়ে খাই। সরাসরি খাই না।পানি যেনো ফুটিয়ে না খেতে হয় সেজন্যেই আমাদের এক সঙ্গে কাজ করতে হবে।”

এর মানে দাঁড়ালো আপনি ওয়াসা থেকে বিশুদ্ধ পানি পাচ্ছেন না?- উত্তরে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, “ওয়াসার পানি বিশুদ্ধই যদি হতো, তাহলে আমি তা ফুটিয়ে খেতাম না।”ডেইলি স্টার অনলাইন